সোমবার   ০৩ আগস্ট ২০২০   শ্রাবণ ১৯ ১৪২৭   ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

১৯০

অভ্যন্তরীণ নৌপথে প্রথম কন্টেইনার ভারত থেকে বাংলাদেশে পৌঁছেছে

প্রকাশিত: ১৪ জুলাই ২০২০  

অভ্যন্তরীণ নৌপথ ব্যবহার করে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রথম পণ্যবাহী পণ্যসম্ভার ১২ জুলাই ঢাকার পানগাঁও আন্তর্জাতিক কনটেইনার টার্মিনালে পৌঁছেছে। 

এমভি প্রুথভি নামে এক জাহাজ ইন্দো-বাংলাদেশ প্রোটোকল রুটে (আইবিপিআর) ঢাকার উদ্দেশ্যে হলদিয়া ডকস থেকে ৩০ শে জুন স্পঞ্জ লোহা বহনকারী ৪৫ বিশ ফুট সমতুল্য ইউনিট (টিইইউ) বহন করে রওয়ানা করে।

ফাইভ স্টার লজিস্টিকস প্রাইভেট লিমিটেডের সহযোগিতায় আদানী লজিস্টিক লিমিটেড; রশ্মি সিমেন্ট লিমিটেড এবং উড়িষ্যা মেটালিক্স প্রাইভেট লিমিটেডের পণ্যসম্ভার পাঠিয়েছে।

 নির্দিষ্ট রুটের মাধ্যমে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে পণ্য চলাচলের অনুমতি দেওয়ার জন্য ১৯৭২ সালে ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ প্রোটোকল অন ইনল্যান্ড ওয়াটার ট্রেড অ্যান্ড ট্রানজিট (পিআইডব্লিউটিটি) স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

ভারত এবং বাংলাদেশ উভয় দেশই পিআইডব্লিউটিটি শক্তিশালীকরণ এই দুই দেশের মধ্যে ভবিষ্যতের ব্যবসায়ের দৃঢ়তার প্রকাশ করে। ল্যান্ডমার্ক কনটেইনার এক্সপোর্ট কার্গো চালানের সাফল্য ভারত ও বাংলাদেশের আমদানিকারক এবং রফতানিকারীদের রোডওয়ে এবং রেলপথের বিকল্প হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

অ্যাডানি লজিস্টিকস এক বিবৃতিতে জানায়, “পূর্বে আমরা হলদিয়া - এনডাবলু  ১ এর হলদিয়া এবং পাটনা এবং এনডাবলু  ২ এর গুয়াহাটির মধ্যে (আইবিপিআর ব্যবহার করে) অভ্যন্তরীণ মালামাল বহন শেষ করেছি। হলদিয়া থেকে গুয়াহাটি পর্যন্ত এনডাবলু ২ এ (আইবিপিআর ব্যবহার করে) কনটেইনার চলাফেরার সাফল্যটি এক্সিম কার্গো চলাচল বাড়ানোর জন্য ভারত এবং বাংলাদেশের আমদানিকারক ও রফতানিকারীদের মধ্যে গভীর আগ্রহ তৈরি হয়েছে। একটি জাহাজ ৬৪টি ট্রাক বা তার বেশি সমপরিমাণ মালামাল বহন করতে পারে।  সুতরাং, অভ্যন্তরীণ নৌপথগুলি পেট্রাপোল আইসিপির মাধ্যমে পণ্যগুলি সরবরাহের প্রতিযোগিতামূলক বিকল্প পথ তৈরি করেছে।"

অ্যাডানি লজিস্টিকসের অভ্যন্তরীণ নৌপথের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অনিল কিশোর সিং বলেন, “বাল্ক / ব্রেক ব্রেকে মালামাল বহনের তুলনায় স্পঞ্জ আয়রন এই পদ্ধতিতেই বহন করা নিরাপদ।"

কোভিড -১৯ এ লকডাউন করার আগে পেট্রাপোলের আইসিপি প্রতিদিন ভারত থেকে প্রায় ৫০০-৫৫০ ট্রাক এবং বাংলাদেশ থেকে প্রায় ১০০-১৫০ ট্রাক পরিচালনা করা হতো।

উভয় দেশের রফতানিকারক এবং আমদানিকারকরা পেট্রাপোল আইসিপিতে যানজট, বিলম্ব এবং একাধিক কার্গো পরিচালনা এড়াতে বিকল্প পরিবহন পদ্ধতির সন্ধান করছিলেন।

ফ্লাই অ্যাশ, স্টোন এগ্রিগ্রেটস এবং প্রজেক্ট কার্গো ইত্যাদির মতো বাল্ক পণ্য ইতোমধ্যে অভ্যন্তরীণ নৌপথ ব্যবহার করে ভারত থেকে বাংলাদেশে আনা হচ্ছে। আদানি লজিস্টিকস এর মতে, অভ্যন্তরীণ নৌপথ উচ্চ মূল্যের পণ্যগুলির জন্যও একটি  অপরিহার্য সংযোজন।