সোমবার   ০৩ আগস্ট ২০২০   শ্রাবণ ১৯ ১৪২৭   ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

১৩০

ভেন্টিলেটর তৈরি করছে সেনাবাহিনী

প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০২০  

বিশ্ব মহামারি করোনায় নাজুক বিশ্ব স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। এ ভাইরাসে আক্রান্ত অনেকেরই অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ডিসট্রেস সিনড্রমের কারণে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। তখনই প্রয়োজন হয় ভেন্টিলেটরের। কোভিড-১৯ মুমূর্ষ রোগীর জন্য যখন ভেন্টিলেটর জরুরি তখন উন্নত দেশগুলোও সংকটে। 

ভেন্টিলেটরের অভাবে প্রতিদিন অনেক করোনা রোগীকেই বাঁচানো যাচ্ছে না। বাংলাদেশে এই ভেন্টিলেটর সুবিধা অপ্রতুল। প্রতিদিনই রোগীর সংখ্যা বাড়লেও পর্যাপ্ত নেই ভেন্টিলেটর। 

এ অবস্থায় সুখবর দিচ্ছে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি (বিএমটিএফ)। সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ এর তত্ত্বাবধানে প্রতিষ্ঠানটি তৈরি করছে অলটারনেটিভ ভেন্টিলেটর।

সেনাবাহিনীর আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানিয়েছে, সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের নির্দেশনায়, বিএমটিএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহউদ্দিনের পর্যবেক্ষণে, যুক্তরাষ্ট্রের এমআইটির কনসেপ্টে, টাইগার আইটির সহযোগিতায় এই ভেন্টিলেটর তৈরি করছে।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, সপ্তাহে তৈরি করা যাবে এক হাজার ভেন্টিলেটর। উদ্ভাবিত ভেন্টিলেটর কয়েকজন রোগীর উপর পরীক্ষামূলক ব্যবহার হয়েছে সিএমএইচে। এ পরীক্ষায় সফলভাবে উতরেও গেছে বিকল্প এ ভেন্টিলেটর। এখন বাণিজ্যিক উৎপাদনের জন্যও প্রস্তুত বিএমটিফ।

আইএসপিআর’র পরিচালক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ বলেন, সেনাবাহিনী প্রধানের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং তার সার্বিক দিক নির্দেশনায় বিএমটিএফকে আর্টিফেসিয়াল ভেন্টিলেটর তৈরির নির্দেশনা দেয়া হয়। সে অনুযায়ী ইঞ্জিনিয়ারদের সহায়তায় বিএমটিএফ দুই সপ্তাহের মধ্যে একটি আর্টিফেসিয়াল ভেন্টিলেটর তৈরি করতে সক্ষম হয়। যে ভেন্টিলেটর পরবর্তীতে ঢাকার সিএমএইচে এনে দুজন রোগীর উপর পরীক্ষা চালানো হয় এবং এর সফলতা প্রমাণিত হয়। 

কোভিড-১৯ রোগীদের জন্য কনভেনশনাল ভেন্টিলেটর এর জায়গায় বিকল্প ভেন্টিলেটর হিসেবে এটি কাজ করবে বলে জানিয়েছে বিএমটিএফ কর্তৃপক্ষ।

এই বিভাগের আরো খবর